ইউটিউব ভিডিও থেকে কিভাবে অর্থ উপার্জন করা যায়? এখনই জেনে নিন

Freelancing করে অনলাইনে আজকাল অনেকেই অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হচ্ছেন। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে অনেকের মাঝেই ধোঁয়াশা কাজ করে। রয়েছে বিশ্বাস অবিশ্বাসের একটা বিষয়ও। কেও কেও আবার ভাবেন যে অনলাইনের অর্থ উপার্জন শুধু মাত্র বিজ্ঞাপন সর্বস্ব ব্যাপার। আবার কেও কেও অনলাইনের ইনকামের জন্য একেবারে মরিয়া। যা হোক শত জল্পনা কল্পনার মুলে কুঠারাঘাত করে আমি বলতে চাই যে, চাইলে আপনি freelancing করে সহজেই অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। অবশ্য এর জন্য আপনার বিশেষ কোন যোগ্যতা থাকতে হবে, এমন কোন কথা নেই। তবে একটা জিনিস অবশ্যই থাকতে হবে, আর তা হলো সময় আর পরিশ্রম করার মানসিকতা। আপনার হাতে যদি কিছু সময় থেকে থাকে, তবে আপনি অযথা বসে না থেকে সময়টাকে কাজে লাগাতে পারেন অনায়াসেই। চলুন জানি কিভাবে?

ইউটিউব ভিডিও থেকে  কিভাবে অর্থ উপার্জন করা যায়? এখনই জেনে নিন
ইউটিউব ভিডিও থেকে কিভাবে অর্থ উপার্জন করা যায়? এখনই জেনে নিন


Outsourcing - আপনি যদি বিশেষ কোন কাজে পারদর্শী হয়ে থাকেন, তবে আপনি আউটসোর্সিং এর কাজ করতে পারেন। 


ইউটিউব ভিডিও থেকে ইনকাম -

আপনি চাইলে আপনার নিজস্ব ইউটিউব ভিডিও আপলোড করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। আপনি নিজস্ব চিন্তা চেতনা নিয়ে সৃজনশীল ভিডিও আপনার ইউটিউব ভিডিওতে আপলোড করে তা থেকে আয় করতে পারেন। তবে ভিডিওটি হতে হবে যে কোন হৃদয় স্পর্শী উপাখ্যান থেকে। যাতে সহজেই তা সকলের অন্তর ছুঁয়ে যেতে পারে। ইউটিউব ভিডিও থেকে আপনার ইনকাম হবে যথাযথ ভিউ এর ভিত্তিতে। আপনার ইউটিউব ভিডিওর ভিউ যত বেশী হবে আপনার আয়ও তত বেশীই হবে। 


কিভাবে ইউটিউব ভিডিও থেকে সহজে ইনকাম করা যায়? 

ইউটিউব ভিডিও আপলোড করে আপনি সহসাই কিন্তু অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন না। ইউটিউব কর্তৃপক্ষের বেঁধে দেয়া কিছু নিয়ম কানুন মেনে তারপর ভিডিও আপলোড করতে হবে। যদি আপনি ইউটিউব কর্তৃপক্ষের নিয়ম না মেনে ভিডিও আপলোড করতেই থাকেন, তবে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ আপনার একাউন্টটি বন্ধ করে দেবে এবং আপনি আর আপনার ইউটিউব পেজে এক্সেস করতে সক্ষম হবেন না। ইউটিউব কর্তৃপক্ষের নির্ধারিত দর্শকসংখ্যা অতিক্রম করলেই আপনি এখান থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। 


ইউটিউব ভিডিও তৈরির ইতিকথা

আপনি যদি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে অর্থ উপার্জন করতে চান, তবে আপনাকে অবশ্যই সৃজনশীল ভিডিও তৈরি করতে হবে। আর আপনার ভিডিও দেখে অন্যেরা যাতে কিছু শিখতে পারে, সেই বিষয়ে আপনার খেয়াল রাখাটা অত্যন্ত জরুরী। আপনি ইউটিউব ভিডিও তৈরি করতে পারেন, বিভিন্ন অ্যাডভেঞ্চার এর উপর। 


আরও পড়ুনঃ শুরুতেই অনলাইনে অর্থ উপার্জনের ইচ্ছে আপনার স্বপ্নকে ম্লান করে দিতে পারে

যে কোন হৃদয়গ্রাহী আইটেম হতে পারে আপনার ইউটিউব ভিডিও উপাদান।

শিশুদের জন্য শিক্ষা মুলক ভিডিও স্থান পেতে পারে আপনার ইউটিউব ভিডিওতে। কোন হরর কাহিনি ভালো ভিউ পেয়ে থাকে। 

বাংলাদেশের বিভিন্ন উপজাতিদের জীবন যাপন চক্র আপনার ইউটিউব ভিডিওর একটি আইটেম হতে পারে। গারো আদিবাসী, চাকমা, সাঁওতাল, মুরুং, রাখাইন প্রজাতির উপজাতিদের নিয়ে নির্মাণ করতে পারেন আপনার ইউটিউব ভিডিও। 

বাংলাদেশের বিভিন্ন নদ-নদী নিয়েও আপনার ইউটিউব ভিডিও তৈরি করতে পারেন। 

পাহাড়ি জীবন যাপন নিয়ে তৈরি ইউটিউব ভিডিও যথেষ্ট ভিউ পেয়ে থাকে। 


ইউটিউব ভিডিও ক্যাপচারের জন্য কি ধরনের ক্যামেরা দরকার? 

আপনি ইউটিউব ভিডিও ক্যাপচারের জন্য সাধারণ ক্যামেরাই ব্যাবহার করতে পারেন। চাইলে আর মেগাপিক্সেল ভালো হলে মোবাইলের মাধ্যমেও আপনি আপনার ইউটিউব ভিডিও ক্যাপচার করতে পারবেন। 


ইউটিউব ভিডিও ধারণ করতে হলে কি প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার হতে হবে? 

মোটেও নয়। আপনার ইউটিউব ভিডিও তৈরির জন্য আপনার প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার হওয়া একান্ত আবশ্যক নয়।


আরও পড়ুনঃ ঘরে বসে স্মার্টফোন দিয়েই উপার্জন করুন মাসিক ১৫০০০-২০০০০ টাকা: দেখুন কিভাবে


ইউটিউব থেকে অর্থ উপার্জন করতে হলে কি কি যোগ্যতা থাকা আবশ্যক? 

বিশেষ কোন যোগ্যতা থাকার দরকার নেই। আপনি মোটামুটি ভাবে ভিডিও আপলোড করতে সক্ষম হলেই হবে। তবে ভিডিওকে আকর্ষণীয় করতে, আপনি বিভিন্ন টুলস ব্যবহার করতে পারেন। পারিপার্শ্বিক অবস্থার দিকে বিশেষ নজর রাখতে হবে আপনাকে। 


সাধারণত কত ভিউ হলে ইউটিউবে তা গননায় আনা হয়? 

ইউটিউবে আপনার আপলোড করা ভিডিওতে বিজ্ঞাপন প্রচার করে, তার উপর আপনাকে একটা সম্মানি দেয়া হয়। যা হতে পারে আপনার কাংখিত অংকের চেয়ে অনেক বেশি। 


ইউটিউব ভিডিও থেকে অর্থ উপার্জন করতে হলে, আপনাকে আগে আবেদন করতে হবে। ইউটিউব চ্যানেলে আপনার কমপক্ষে ১০০০-১২০০ সাবস্ক্রাইবার থাকতে হবে। আর কমপক্ষে ৪০০০-৫০০০ হাজার ঘন্টার ভিডিও আপনার ইউটিউব চ্যানেলে থাকা আবশ্যক হবে। যদি আপনার ইউটিউব ভিডিও উপরে বর্নিত শর্তগুলো পূরণ করতে সক্ষম হয়, তবেই আপনি ইউটিউব ভিডিও থেকে অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। 


কিভাবে ইউটিউব ভিডিও এর দর্শকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করবো? 

আপনি ইউটিউব চ্যানেলে  আপলোড করা ভিডিও, বিভিন্ন সোসাল মিডিয়ার শেয়ার করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রেও আছে কিছু দিকনির্দেশনা। সেগুলো না মানলে আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি ইউটিউব কর্তৃপক্ষ বন্ধ করে দিতে পারে। তাই ইউটিউব ভিডিও অতিরিক্ত শেয়ারিং থেকে বিরত থাকুন। 


আপনার আপলোড করা ইউটিউব ভিডিও ফেসবুক, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম প্রভৃতিতে শেয়ার করে এর ভিউসংখ্যা বাড়াতে পারেন। 


আরও পড়ুনঃ নতুনদের জন্য অনলাইনে বাংলা আর্টিকেল লিখে অর্থ উপার্জনের সহজ পদ্ধতি


ইউটিউব ভিডিওতে কি গান আপলোড করে অর্থ উপার্জন করার পদ্ধতি আছে? 

অবশ্যই। আপনি ইউটিউব ভিডিও চ্যানেলে আপনার গান আপলোড করে অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। 


মিথ্যা খবর বা সম্পুর্ন বানোয়াট কিছু ইউটিউব চ্যানেলে প্রচার করবেন না। 

অশ্লীল ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করা থেকে বিরত থাকতে হবে। 


ইউটিউব ভিডিও তৈরি কিভাবে? আর ভিডিও তৈরি করতে কি কি যোগ্যতা থাকা আবশ্যক? 

আপনি আপনার ট্যাব, কম্পিউটার এমনকি একটি স্মার্ট ফোন দিয়েও ইউটিউব ভিডিও তৈরি করতে পারবেন। এরজন্য বড় ধরনের ডি এস এল আর ক্যামেরা প্রথমেই প্রয়োজন নেই। 

ইউটিউব ভিডিও তৈরি করতে বিশেষ কোন অতিরিক্ত যোগ্যতা আগেই খুব একটা থাকা বাধ্যতামূলক নয়। আপনি প্রথমে শুরু করুন আপনার যা আছে তাই দিয়ে। যখন আপনার আয়ের পথ খুলে যাবে তখন আপনি বানিজ্যিক ভাবে চিন্তা ভাবনা করবেন। 

আপনার তৈরিকৃত ইউটিউব ভিডিও এর একটি সুন্দর নাম দিন। অল্প কথায় ভিডিওর মিনিং বর্ননা করুন। 


উপসংহার

আপনি প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার না হয়েও ইউটিউব ভিডিও নির্মাণ করে বা আপলোড করে অর্থ উপার্জনে সক্ষম হবেন। এর জন্য প্রয়োজন নেই আপনার বিশেষ কোন যোগ্যতা। তাহলে আর দেরি কেন? চলুন ঝটপট একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলে ফেলি!