ফাইবারের করুন এই সরল কাজগুলি আর ভালো টাকা ইনকাম করুন

ফাইবারের এই সহজ কাজগুলি সম্পর্কে আপনাদের জেনে রাখা দরকার। আমাদের আজকের আয়োজনে আজ আলোচনা করব বাড়িতে বসে ফাইবারে আপনি কি কি সরল কাজ করে অধিক ইনকাম করতে পারবেন। 

ফাইবারের করুন এই সরল কাজগুলি আর ভালো টাকা ইনকাম করুন
Do these simple tasks of Fiverr and earn good money

ফ্রিল্যান্সিং এর দুনিয়ায় ফাইবার একটি জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস। এর জনপ্রিয়তার মূলে রয়েছে এখানে আপনি বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে পারবেন। মূলত ফাইবার হচ্ছে ক্রেতা এবং বিক্রেতা মিলন মেলা যেখানে উভয়পক্ষের চাহিদার ওপর ভিত্তি করে কাজ হয়ে থাকে। তবে ফাইবারে সবথেকে আকর্ষনীয় বিষয় হচ্ছে এখানে  আপনি ছোট ছোট কাজগুলো করতে পারবেন। ফলে আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিংয়ের ক্ষেত্রে নতুন হয়ে থাকেন তবে কোনো সমস্যা নেই। 



Fiverr কি?

কি ধরনের কাজ ফাইবারে করা যায় তা জানার পূর্বে চলুন জেনে আসি ফাইবার আসলে কি? আমরা অনেকেই হয়তো ফাইবারের নাম শুনেছি কিন্তু পাইবার সম্পর্কে তেমন বিস্তারিতভাবে জানিনা। ফাইবার হচ্ছে একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস। যেখানে একদিকে যেমন বিক্রেতাগণ তাদের পণ্য বা সেবা বিক্রয় করে থাকেন অপরদিকে ক্রেতা এই সকল পন্য বা সেবা কিনে থাকেন। এখানে পণ্য বা সেবার সর্বনিম্ন মূল্য ৫ ডলার। অর্থাৎ ফাইবারে ৫ ডলার থেকে কাজ শুরু হয়।


ফাইবার একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস হওয়ায় এখানে ভার্চুয়াল পণ্যের উপর অধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়। কাজেই আপনিও ভার্চুয়াল পণ্য বা সেবা বিক্রি করে এখান থেকে আয় করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনাকে একটি আকর্ষণীয় গিগ তৈরি করতে হবে যা দেখে ক্রেতাগণ আপনার কাজের প্রতি আকৃষ্ট হবে। 



কিভাবে কাজ পাবেন ফাইবারে?

ফাইবার থেকে কাজ করার জন্য প্রথমেই আপনাকে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে ফাইবারের রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এক্ষেত্রে ফাইবারে আপনার একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি হবে। এরপর আপনি যেসব কাজে পারদর্শী সেসব কাজের আকর্ষণীয় গিগ দিতে পারেন। গিগ তৈরি সময় অবশ্যই লক্ষ্য রাখবেন এর টাইটেল যেন আকর্ষণীয় হয়। কারণ টাইটেল দেখেই একজন ক্রেতা আপনার প্রতি আকৃষ্ট হবে।এরপর আপনি সুন্দরভাবে ডিটেলস দেখবেন যে আপনি কি ধরনের কাজ করতে চাচ্ছেন। এক্ষেত্রে মনে রাখবেন ডিটেলস টা যেন ভালো হয় কারণ আপনার ডিটেলস তারাই পড়বে যারা আপনার কাজের জন্য আগ্রহী।


আপনি যখন কোনো কাজ পাবেন তখন সেটি ভালো ভাবে সম্পন্ন করবেন এবং নির্দিষ্ট সময়ে সাবমিট করে দিবেন। এতে করে ফাইবারে আপনার একটি পোর্টফোলিও তৈরি হবে। পরবর্তীতে আপনি অনেক বেশি কাজ পাবেন। তবে অনেকের মনেই এমন একটি প্রশ্ন থাকে যে ফাইবারে কখন একটিভ থাকলে বেশি কাজ পাওয়া যায়। বস্তুত ফাইবারে বেশি কাজ পাওয়ার জন্য রাতের বেলা একটিভ থাকতে হয়। কারণ এখানে আমাদের বেশিরভাগ কাস্টমার থাকে আমেরিকান ব্যক্তি। কাজেই সময়ের পার্থক্যের কারণে এই অসুবিধা টুকু হয়ে থাকে। 




কি ধরনের কাজ করতে পারবেন ফাইবারে থেক? 

এখন চলুন জেনে নেই কি ধরনের কাজ করে ফাইবার থেকে আয় করতে পারবেন। মূলত এখানে আপনি কাভার ফটো তৈরি থেকে শুরু করে ভিডিও এডিটিং সহ সব জাতীয় কাজই করতে পারবেন। যে ধরনের কাজের আপনি অধিক পারদর্শী সে ধরনের কাজ করতে পারবেন। তবে এখানে কয়েকটি কাজের সম্পর্কে আলোচনা করব। 

ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট 

বর্তমান সময়ে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর চাহিদা অনেক বেশি। আপনার যদি ওয়েবসাইটের উপর কোন রকম জ্ঞান থেকে থাকে তবে আপনি ওয়েব ডেভলপমেন্ট কাজটি করতে পারেন। বর্তমানে সকল প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজন পড়ে একটি নিজস্ব ওয়েবসাইটের। এক্ষেত্রে যেমন রয়েছে অর্থ তেমন রয়েছে চাহিদা। 



কনটেন্ট রাইটিং 

আপনি যদি কনটেন্ট রাইটিংয়ে পারদর্শী হয়ে থাকেন তবে ফাইবার থেকে আপনি এই কাজটিও করতে পারবেন। কন্টেন্ট রাইটিং এর চাহিদাও বর্তমানে অনেক বেশি। কন্টেন্ট রাইটিং এর জন্য আপনি পাবেন ভালো অর্থ। 



মিউজিক তৈরি করা 

আপনি যদি সঙ্গীতপ্রেমী হয়ে থাকেন এবং মিউজিক তৈরি করা যদি আপনার শখ হয়ে থাকে তবে এই শখকে কাজে লাগিয়ে ফাইবার থেকে আয় করতে পারবেন অর্থ। এমন অনেক ক্রেতা রয়েছেন যারা ভালো ভালো মিউজিক গুলো অনেক অর্থে কিনে নেয়। কাজে আপনি যদি ভাল এবং আলাদা মানের মিউজিক দিতে পারেন তবে অনায়াসেই আপনি মিউজিক বিক্রয় করে অর্থ আয় করতে পারবেন। এছাড়াও একটি গান কম্পোজ করার সহজ লিখতে পারেন গান। 



ডিজিটাল মার্কেটিং 

ফাইবারে মার্কেটিংয়ের কাজ গুলো বেশ জনপ্রিয়। আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে কোনো প্রতিষ্ঠানের হয়ে তাদের পণ্য বা সেবার মার্কেটিং করে দিতে পারেন। 



ভিডিও এডিটিং 

ভিডিও এডিটিং সম্পর্কে আপনার যদি জ্ঞান থাকে তবে আপনি অনায়াসেই করতে পারেন এই কাজটিও। এক্ষেত্রে আপনি ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ী যেকোনো ধরনের ভিডিও এডিট করে দিতে পারেন। 



ফেসবুক পেজ ম্যানেজমেন্ট 

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এখন তাদের ফেসবুক পেজ ম্যানেজ করার জন্য ব্যক্তিদের নিয়োগ দিয়ে থাকেন। আপনি ফাইবার এর মাধ্যমে এ ধরণের কাজ খুঁজে নিতে পারবেন। 



ফটো এডিটিং 

আপনি যদি ফাইবাবে নতুন হয়ে থাকেন এবং ছোট কোন কাজ খুঁজছেন তবে ফটো এডিটিং করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনি কোন প্রতিষ্ঠানের জন্য তাদের প্রয়োজনীয় ফটো এডিট করে দিতে পারেন। এবং কামিয়ে নিতে পারেন অর্থ । 



লোগো ডিজাইন 

ফটো এডিটিং ভিডিও এডিটিং এর মত আপনি তৈরি করতে পারেন লোগো। এর মাধ্যমে আপনি কোন প্রতিষ্ঠানের চাহিদা অনুযায়ী তাদের লোগো তৈরি করে দিতে পারেন। অথবা নিজের তৈরিকৃত লোগো অর্থের বিনিময়ে বিক্রয় করতে পারবেন। 



পোস্টার বা কাভার ফটো তৈরি 

বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা ফেসবুক পেজের জন্য আপনি পোস্টার বা কাভার ফটো তৈরি করতে পারবেন ফাইবারে গিয়ে। এক্ষেত্রে ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ী আপনি তাদের পছন্দনীয় পোস্টার বা কাভার ফটো তৈরি করে দিবেন। এবং আয় করে নিবেন নগদ অর্থ। 

এখানে আমি ফাইবার থেকে করা যায় এমন বেশ কিছু কাজের উদাহরণ দিয়েছি। এই কাজগুলো খুব সহজ এবং খুব তাড়াতাড়ি করতে পারবেন। কাজেই আপনি পার্টটাইম কাজের অংশ হিসেবে ফাইবার থেকে এই কাজগুলো করার মাধ্যমে আয় করে নিতে পারবেন অর্থ।