ভারতের এই কেল্লাগুলো সম্পর্কে জানলে অবাক হবেন আপনিও

বিভিন্ন ঐতিহাসিক নিদর্শনের দেশ হচ্ছে ভারত। এই দেশের বিভিন্ন স্থাপনার মধ্যে রয়েছে যত সৌন্দর্যতা তেমনি রহস্য। এই আর্টিকেলটিতে তেমনি কিছু রহস্যে ঘেরা কেল্লা নিয়ে লেখা হয়েছে।

ভারতের এই কেল্লাগুলো সম্পর্কে জানলে অবাক হবেন আপনিও
ভারতের এই কেল্লাগুলো সম্পর্কে জানলে অবাক হবেন আপনিও

এই তো গেল গত তিনটি আর্টিকেলে ভারতের ছয়টি অদ্ভুত কেল্লা সম্পর্কিত বিস্তারিত লেখা। আজকের আর্টিকেলটিতে আরো দুটো ভারতের কেল্লা নিয়ে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।


তাই চলুন আমরা কোন ভূমিকা না করে সরাসরি আর্টিকেলটির মূল অংশে প্রবেশ করে ফেলি।


1. লাল কেল্লা (Lal Fort)

 

Image Source: YouTube


যদি আপনাকে জিজ্ঞাসা করা হয় ভারতের সবথেকে আকর্ষনীয় এবং বিখ্যাত কেল্লা কোনটি সবার আগে আপনার উত্তর হবে ভারতের লাল কেল্লা।


এটি এমন একটি কেল্লা যার জনপ্রিয়তা অধিক বেশি এবং ভারতের অন্যান্য সকল কেল্লা থেকে এটি সবচেয়ে বেশি সুন্দর। দিল্লিতে অবস্থিত এই কেল্লা বানিয়েছিলেন মুঘল সম্রাট শাহজাহান।


1648 খ্রিস্টাব্দে এই কেল্লার নির্মাণ করার কাজ মুঘল সম্রাট শেষ করেছিলেন। মূলত কেল্লাটির নাম লাল কেল্লা হওয়ার কারণ হচ্ছে সম্পূর্ণ দেয়াল লাল রঙের বেলে পাথর দিয়ে তৈরি।


আর তাই কেল্লাটি লাল রঙের হওয়ায় সম্পূর্ণ কেল্লাটির নাম রাখা হয় লাল কেল্লা। একবার কেল্লার ভেতর প্রবেশ করলে মনমুগ্ধকর বিষয়বস্তুর দেখতে দেখতে দর্শনার্থীরা হারিয়ে যান।


আপনি যদি কখনো কেল্লায় ঘুরে আসার জন্য যান তখন দেখা যাবে ভেতরে গেলে আপনার আর বের হতে ইচ্ছে করবে না। এই কেল্লার ভিতরে দেখার মত রয়েছে অনেক অনেক জিনিস।


তার মধে অন্যতম হচ্ছে মোতি মসজিদ, দেওয়ান-ই-আম, দেওয়ান-ই-খাস সহ আরো অনেক কিছু। এসকল জিনিস দেখার জন্য শরণার্থীরা ভিড় করে প্রতিদিন। মহান যমুনা নদীর পাশেই এই কেল্লাটির অবস্থান।


নদীর ঢেউয়ের কলকল শব্দ যেন এই কেল্লাটির প্রাণ বাঁচিয়ে রেখেছে। সবথেকে আকর্ষনীয় বিষয় হচ্ছে এই কেল্লাটিতে রয়েছে একটি মিউজিয়াম।


যেখানে সংরক্ষণ করা হয়েছে সেই কালের রাজা শাসকদের যুদ্ধের অস্ত্রপাতি সহ বিভিন্ন ধরনের জিনিসপত্র। এই জাদুঘরে একবার প্রবেশ করলে আপনি মধ্যযুগের সামগ্রী সম্পর্কে ধারণা করতে পারবেন। দেশের অন্যতম একটা গুরুত্বপূর্ণ জায়গা হিসেবে লাল কেল্লার নামটা উঠে আসে।


এর পেছনে কারণ রয়েছে ভারতের স্বাধীনতা দিবসে যখন সরকার ভাষণ দেওয়ার আয়োজন করে তখন তিনি এই কেল্লাতে এসেই সম্পূর্ণ ভাষণ প্রজাদের উদ্দেশ্যে দিয়ে থাকেন।


তেরঙ্গা পতাকাটাও উত্তোলন করা হয় এইখানে। ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ এর খাতায় লাল কেল্লার নাম খুঁজে পাওয়া যাবে।


2. জয়গড় কেল্লা৷ (Jaigarh Fort)

 

Image Source: wikipedia.org


ভারতকে গোল্ডেন বার্ড বলা হয় এটা নিশ্চয়ই আপনারা জানেন। তবে এর পেছনের কারণটা সম্পর্কে কি আদৌও ধারণা আছে?


এর কারন হচ্ছে ভারতের কিছু কিছু জায়গায় আপনি এমন সব স্থানের হদিশ পাবেন যেখানে প্রায় কোটি টাকার সম্পত্তি, গুপ্তধন ইত্যাদি রয়েছে।


জয়গড় কেল্লাটিও ভারতের এমন একটি স্থান যেখানে কোটি কোটি টাকার গুপ্তধন লুকিয়ে আছে বলে শোনা যায়। একটি বিখ্যত পর্বতের উপর এই জয়গড় কেল্লাটি অবস্থিত।


এইখানেই নাকি শুধুমাত্র হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি লুকায়িত রয়েছে। এখানকার গুপ্তধনের সন্ধান দেওয়ার জন্য সকলেই চেষ্টা চালিয়েছিল।


বাকি থাকেননি ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী নিজেও। কিন্তু অন্য সকল জনতার মত সফল হতে পারেননি তিনি। আর এ কারনে আজও গুপ্তধনের কথা রহস্যই থেকে যায়।


এই কেল্লাটি নির্মাণ করেন জয় সিং প্রায় 1035 খ্রিস্টাব্দে। ইতিহাস কথা বলে। আর এই ইতিহাসের মতে শোনা যায় যে, রাজা মানসিংহের সাথে সম্রাট আকবরের মধ্যে কোন একসময় একটা চুক্তি হয়েছিল।


যেই চুক্তিতে নাকি বলা হয় রাজা মানসিংহ যেসকল রাজত্ব জয় করবেন সেখানে সম্রাট আকবরের রাজত্ব হবে। শুধুমাত্র ঐ সকল স্থান থেকে পাওয়া গুপ্তধন গুলোর মালিকানা মানসিংহ কে দিতে হবে।


এই চুক্তিবদ্ধ হওয়ার কারণেই দেখা যায় যে সে সকল স্থান থেকে পাওয়া সোনা দানা গুলো রাজা মানসিংহ কেল্লার বেজমেন্টে লুকিয়ে রাখেন।


ইন্দিরা গান্ধীর পাঠানো সার্চ টিম রাও টানা ছয় মাস অভিযান চালিয়েও সেই গুপ্তধন গুলো বের করতে সক্ষম হয়নি।


প্রিয় পাঠক, আজকের আর্টিকেলটি কেমন লেগেছে জানাতে ভুলবে না কিন্তু। আজ এখানে ইতি টানছি, ধন্যবাদ।


আরও পড়ুনঃ ভারতের রাজস্থান ও হায়দারাবাদের যত অদ্ভুত কেল্লায় লুকিয়ে আছে রহস্য